Smart Glasses: স্মার্টগ্লাসের যুগ শুরু, ব্যবহার কমছে স্মার্টফোনের

১৯৯২ সালে আবিষ্কৃত হয় স্মার্টফোন। তখন আইবিএম (IBM) এর ধারণা জনসম্মুখে প্রকাশ করে। এরপর ১৯৯৪ সালে বাজারজাত করে প্রথম স্মার্টফোন। এর নাম দেয়া হয়েছিল সাইমন পার্সোনাল কমিউনিকেটর (SPC)। যদিও এ ডিভাইসটি খুব কমপ্যাক্ট এবং মসৃণ ছিল না। তবে এর বেশ কয়েকটি ফিচার নিয়েই পরবর্তীতে স্মার্টফোনের যুগ শুরু হয়।

তবে স্মার্টফোন এখন আর সর্বশেষ স্মার্ট ডিভাইস নয়। বলা যায় স্মার্টফোনের যুগ শেষ হতে চলেছে। আধুনিক প্রজন্ম যেন আরও আধুনিক কিছু চাইছে। ফলে স্মার্টফোনের ব্যবসাও ধীরে ধীরে স্তিমিত হয়ে হয়ে যাচ্ছে। এবার শুরু হচ্ছে স্মার্টগ্লাস (Smart Glasses) এর যুগ।

স্মার্টফোনের মাধ্যমে যে কাজগুলো করা সম্ভব হচ্ছে, এবার তার চেয়েও আরও আধুনিক আরও জটিল নতুন কোনো ডিভাইসের আশায় রয়েছেন উদ্ভাবকেরা। সাহায্য নেয়া হচ্ছে ‘অগমেন্টেড রিয়েলিটি’ বা AR প্রযুক্তির। এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে অ্যাপল, গুগল, মেটা ও মাইক্রোসফটের মতো প্রতিষ্ঠান ভিআর বা এআর হেডসেট তৈরি কাজ করছে।

স্মার্টফোনের আরও আধুনিক স্মার্টগ্লাস

এআর হেডসেট হলো বিশেষ এক চশমা বা স্মার্ট গ্লাস। এ চশমার মাধ্যমে বাস্তব জগতের সঙ্গে কম্পিউটার গ্রাফিক যুক্ত হলে নতুন অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে। এই প্রযুক্তির সাহায্যে ইউজাররা কম্পিউটার সফটওয়্যারের মাধ্যমে বাস্তব জগতের বস্তু ও মানুষের মধ্যে সমন্বয় সাধন করতে পারবেন। চশমার মাধ্যমে কথোপকথন চালানো ছাড়াও প্রয়োজনীয় নানা কাজ সারা যাবে। কিন্তু এ ধরনের চশমা বাজারে আসতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে বলে ধারণা করছেন বিজ্ঞানীরা।

স্মার্টফোন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০১৬ সাল থেকে ধীরে ধীরে ফোন বিক্রি কমছে। কারণ, স্মার্টফোন-প্রযুক্তির ক্ষেত্রে বড় ধরনের কোনো অগ্রগতি আর হচ্ছে না। মানুষ তাই স্মার্টফোনের পিছনে দৌড়নো কমিয়ে দিয়েছে। ধনী-গরীব প্রায় সব দেশেই এখন প্রায় সব মানুষের হাতেই পৌঁছে গেছে স্মার্টফোন। ফলে প্রযুক্তি উদ্ভাবকদের নতুন করে চিন্তাভাবনা করতেই হচ্ছে।

১ thought on “Smart Glasses: স্মার্টগ্লাসের যুগ শুরু, ব্যবহার কমছে স্মার্টফোনের”

Leave a Reply