ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে ১২টি টিপস

ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড এখন সাধারণ মানুষের হাতের নাগালে চলে এসেছে। ডিজিটাল এই যুগে প্রযুক্তি আমাদেরকে অনেক কিছুই হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে। এর ফলে একদিকে যেমনি আমাদের জীবন যাত্রা সহজ হচ্ছে। তেমনি দুষ্কৃতিকারীরাও প্রযুক্তি ব্যবহার করে আরও স্মার্ট হচ্ছে। ফলে বাড়ছে জালিয়াতি। বিশেষ করে আর্থিক খাতে জাতিয়ালির চেষ্টা সবচেয়ে বেশি। তাই আপনার ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে একটু সতর্ক না হলে ঘটতে পারে বড় ধরনের বিপত্তি। বিভিন্ন ব্যাংক সময়ে সময়ে আপনাকে সতর্ক করছে। তারপরেও অনেক সময়ে ডেবিট-ক্রেডিট কার্ড ইউজাররা সামান্য অবহেলা করে দূর্ঘটনায় পতিত হচ্ছেন।

জেনে নিন আপনার করণীয় কি?

১. ব্যাংক অ্যাকাউন্টের নম্বর, পিন, সিভিভি (কার্ডে থাকা তিন/চার সংখ্যার নম্বর) ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড কাউকে দেবেন না।

২. অনেক সময়ে ব্যাঙ্ক বা অন্য কোনও বিশ্বস্ত সংস্থার নাম করে ফোন, ই-মেল ইত্যাদির মাধ্যমে প্রতারক কার্ডের পিন নম্বর জানার চেষ্টা করে। ভুলেও সেই ফাঁদে পা দেবেন না। মনে রাখবেন, আপনার তথ্য এমনিতেই ব্যাঙ্কের কাছে আছে। তারা তা নতুন করে চাইবে কেন?

৩. পিন নম্বর মুখস্থ রাখুন। লিখে রাখলে, অবশ্যই সাংকেতিক ভাবে।

৪. কার্ড ব্যবহারে অপরিচিতের সাহায্য নেবেন না।

৫. কার্ডে জিনিসপত্র কেনাকাটার সময়ে সাবধান থাকুন। দোকানে কেনাকাটা বা রেস্তরাঁয় খাওয়াদাওয়ার পরে কার্ড সোয়াইপ করানোর জন্য তা অন্য কারও হাতে দেবেন না।

৬. নির্দিষ্ট সময়ের পর পর ডেবিট/ক্রেডিট কার্ডের পিন পরিবর্তন করুন।

৭. কার্ডে পিন নম্বর লিখে রাখবেন না, কাউকে কার্ড দেবেন না। এমনকি নিজেও পিন নম্বর কাউকে বলবেন না।

৮. আপনি যখন এটিএমের ভিতরে থাকবেন, তখন অন্য কাউকে প্রবেশ করতে দেবেন না।

৯. এটিএম মেশিনে পিন দেওয়ার সময় হাত দিয়ে আড়াল করে পিন দিন। যাতে অন্য কারোর নজরে না পড়ে।

১০. এটিএম থেকে টাকা তোলার পর যে স্লিপ আসে তা কাউন্টারে ফেলে আসবেন না।

১১. এটিএমের স্ক্রিন যতক্ষন না পুরনো অবস্থায় ফিরে আসছে, ততক্ষণ পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন।

১২. নতুন কার্ড নেওয়ার পর পুরনো কার্ড পুরোপুরি নষ্ট করে ফেলুন।

 

Leave a Reply